এষৌর পরিবার

১. এষৌর (ইদোম) বংশ বৃত্তান্ত এই।

২. এষৌ কনান দেশের এক স্ত্রীলোককে বিয়ে করেন। এষৌর স্ত্রীরা ছিলেন: হিত্তীয়, এলোনের কন্যা আদা, অনার কন্যা অহলীবামা, অনা ছিলেন হিব্বীয় সিবিয়োনের পৌত্রী।

৩. এবং ইশ্মায়েলের কন্যা বাসমৎ, বাসমতের বোনের নাম নবায়োত।

৪. এষৌ এবং আদার পুত্রের নাম ইলীফস। বাসমতের পুত্রের নাম ছিল রূয়েল।

৫. অহলীবামার তিনটি পুত্রের নাম যিয়ুশ, যালম ও কোরহ। এষৌর এই পুত্ররা কনান দেশে জন্মেছিলেন।

৬-৮. এষৌ এবং যাকোবের প্রচুর সম্পত্তি এবং বহু লোকজন হয়ে যাবার জন্য তাদের পক্ষে একসঙ্গে থাকা অসম্ভব হয়ে উঠল। তাদের প্রচুর পশুপাল ছিল বলে সেই জমিটি, যেখানে তারা থাকত, তাদের প্রয়োজন মেটাতে পারত না। তাই এষৌ তার ভাই যাকোবের কাছ থেকে চলে গেলেন। এষৌ তার স্ত্রী, পুত্র, কন্যা, সমস্ত দাসী, গরু এবং অন্যান্য পশু এবং কনান দেশে তার আর যা কিছু ছিল সব নিয়ে পর্বতময় প্রদেশ সেয়ীরে চলে গেলেন। (এষৌ ইদোম নামেও পরিচিত এবং ইদোম সেয়ীর দেশের অপর নাম।)

৯. এষৌ হলেন ইদোমীয়দের পূর্বপুরুষ। পার্বত্য সেয়ীর (ইদোম) প্রদেশে বসবাসকারী এষৌর পরিবারগোষ্ঠীর নামগুলি:

১০. এষৌ এবং আদার পুত্র ইলীফস। এষৌ এবং বাসমতের পুত্র রূয়েল।

১১. ইলীফসের পাঁচটি পুত্র ছিল: তৈমন, ওমার, সফো, গয়িতম ও কনস।

১২. তিম্না নামে এষৌর একজন দাসীও ছিল। তিম্না ও ইলীফসের পুত্রের নাম অমালেক।

১৩. রূয়েলের চার পুত্রের নাম নহৎ, সেরহ, শল্ম ও মিসা। এরা ছিল এষৌর স্ত্রী বাসমতের নাতি।

১৪. এষৌর তৃতীয় স্ত্রীর নাম ছিল অহলীবামা, ইনি ছিলেন অনার কন্যা। (অনা ছিলেন সিবিয়োনের পুত্র।) এষৌ এবং অহলীবামার সন্তানরা হল: যিয়ুশ, বালম ও কোরহ।

১৫. এষৌ হতে উৎপন্ন পরিবারগোষ্ঠীগুলি হল নিম্নরূপ:এষৌর প্রথম পুত্র ইলীফস থেকে উৎপন্ন তৈমন, ওমার, সফো, কনস,

১৬. কোরহ, গয়িতম ও অমালেক। এই সমস্ত পরিবারগোষ্ঠী এষৌর স্ত্রী আদা থেকে উৎপন্ন।

১৭. এষৌর পুত্র রূয়েল ছিলেন নহৎ, সেরহ শল্ম ও মিসার পিতা।এই সমস্ত পরিবারের মা ছিলেন এষৌর স্ত্রী বাসমৎ।

১৮. এষৌর স্ত্রী অহলীবামা, অনার কন্যা, যিয়ুশ, বালম ও কোরহের জন্ম দিলেন। ঐ তিনজন ছিলেন তাদের পরিবারের পিতা।

১৯. এষৌ হতে উৎপন্ন ঐ পুরুষরা প্রত্যেকে ছিলেন তাঁদের নিজ পরিবারগোষ্ঠীর নেতা।

২০. হোরীয় সেয়ীরের এই পুত্ররা সেই দেশে বাস করত। এরা হল লোটন, শোবল, শিবিয়োন, অনা, দিশোন, এৎসর, ও দীশন।

২১. এই পুত্ররা ছিল ইদোম দেশে সেয়ীর হতে আসা হোরীয় পরিবারের গোষ্ঠীর নেতাসকল।

২২. লোটন ছিলেন হোরি এবং হেমনের পিতা। (তিম্না ছিলেন লোটনের বোন।)

২৩. শোবল ছিলেন অল্ বন, মানহৎ, এবল, মফো ও ওনমের পিতা।

২৪. সিবিয়োনের দুই পুত্র ছিল অয়া ও অনা। (অনাই সেই জন যিনি তাঁর পিতার গাধাদের চরাবার সময় মরুভূমিতে উষ্ণ প্রস্রবণ খুঁজে পেয়েছিলেন।)

২৫. অনা ছিলেন দিশোন ও অহলীবামার পিতা।

২৬. দিশোনের চার পুত্র ছিল। তাদের নাম: হিম্দন, ইশ্বন, যিত্রণ ও করান।

২৭. এত্সরের তিন পুত্র ছিল। তাদের নাম বিল্হন, সাবন ও আকন।

২৮. দীশনের দুই পুত্র ছিল। তাদের নাম উষ ও অরাণ।

২৯. হোরীয় পরিবারগুলির দলপতিদের নামগুলি এইরকম: লোটন, শোবল, সিবিয়োন,

৩০. অনা, দিশোন, এৎসর ও দীশোন। সেয়ীর দেশে যে পরিবারগুলি বাস করত, এই লোকেরা ছিল তাদের দলপতিগণ।

৩১. সেই সময় ইদোমে রাজারা রাজত্ব করতেন। ইস্রায়েলে রাজ শাসন চালু হবার বহু পূর্বেই ইদোমে রাজারা রাজত্ব করতেন।

৩২. যিয়োরের পুত্র বেলা ইদোম দেশে রাজত্ব করেন, তার রাজধানীর নাম দিন্হাবা।

৩৩. বেলার মৃত্যুর পর যোবব রাজা হলেন। যোবব ছিলেন বস্রা নিবাসী সেরহের পুত্র।

৩৪. যোববের মৃত্যুর পর হূশম রাজত্ব করলেন। হূশম ছিলেন তৈমন দেশীয়।

৩৫. হূশমের মৃত্যুর পর বেদদের পুত্র হদদ সেই নগর শাসন করলেন। (হদদই মোয়াব দেশে মিদিয়নদের পরাজিত করেছিলেন। হদদ এসেছিলেন অবীৎ শহর থেকে।

৩৬. হদদের মৃত্যুর পর সম্ল সেই দেশ শাসন করতে থাকেন। সম্ল এসেছিলেন মস্রেকা থেকে।

৩৭. সম্লের মৃত্যুর পর শৌল সেই দেশ শাসন করতে থাকেন। শৌল এসেছিলেন ফরাৎ নদীর ধারে স্থির রহোবোৎ থেকে।

৩৮. শৌলের মৃত্যুর পর বাল্হানন সেই দেশে রাজত্ব করেন। বাল্হানন ছিলেন অক্বোরের পুত্র।

৩৯. বাল্হাননের মৃত্যুর পর হদর সেই দেশে রাজত্ব করেন। হদর ছিলেন পায়ু শহরের লোক। হদরের স্ত্রীর নাম মহেটবেল; ইনি ছিলেন মট্টেদের কন্যা। (মট্টেদের পিতার নাম মেষাহবের।)

৪০-৪৩. এষৌ ছিলেন ইদোম পরিবারগুলির পিতা। ইদোম পরিবারগুলি হল তিম্ন, অল্বা, যিথেৎ, অহলীবামা, এলা, দীনোন, কনস, তৈমন, মিব্মস, মগদীয়েল ও ঈরম। এই পরিবারগুলির নাম অনুসারেই তাদের বসতি স্থানের নাম হল।

0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x