৩৮. সূরাঃ সোয়া-দ

আয়াত অবতীর্ণঃ মক্কা
আয়াত সংখ্যাঃ ৮৮
রুকূঃ ৫
৫১ مُتَّكِئِينَ فِيهَا يَدْعُونَ فِيهَا بِفَاكِهَةٍ كَثِيرَةٍ وَشَرَابٍ
সেথায় তারা আসীন হবে হেলান দিয়ে, সেথায় তারা বহুবিধ ফলমূল ও পানীয়ের জন্যে আদেশ দিবে।
৫২ وَعِندَهُمْ قَاصِرَاتُ الطَّرْفِ أَتْرَابٌ
আর তাদের পার্শ্বে থাকবে আনত নয়না সমবয়স্কা তরুণীগণ।
৫৩ هَـٰذَا مَا تُوعَدُونَ لِيَوْمِ الْحِسَابِ
এটাই হিসাব দিবসের জন্যে তোমাদেরকে দেয়া প্রতিশ্রুতি।
৫৪ إِنَّ هَـٰذَا لَرِزْقُنَا مَا لَهُ مِن نَّفَادٍ
এটাই আমার দেয়া রিযিক যা নিঃশেষ হবে না।
৫৫ هَـٰذَا ۚ وَإِنَّ لِلطَّاغِينَ لَشَرَّ مَآبٍ
এটাই (মুত্তাকীদের পরিণাম), আর সীমালঙ্ঘনকারীদের জন্যে রয়েছে নিকৃষ্টতম পরিণাম-
৫৬ جَهَنَّمَ يَصْلَوْنَهَا فَبِئْسَ الْمِهَادُ
জাহান্নাম, সেথায় তারা প্রবেশ করবে, কত নিকৃষ্ট বিশ্রামস্থল।
৫৭ هَـٰذَا فَلْيَذُوقُوهُ حَمِيمٌ وَغَسَّاقٌ
এটা তো তা (সীমালঙ্ঘনকারীদের জন্যে), সুতরাং তারা আস্বাদন করুক ফুটন্ত পানি ও পুঁজ।
৫৮ وَآخَرُ مِن شَكْلِهِ أَزْوَاجٌ
আরো আছে এরূপ বিভিন্ন ধরনের শাস্তি।
৫৯ هَـٰذَا فَوْجٌ مُّقْتَحِمٌ مَّعَكُمْ ۖ لَا مَرْحَبًا بِهِمْ ۚ إِنَّهُمْ صَالُو النَّارِ
এ তো এক বাহিনী, তোমাদের সাথে (জাহান্নামে) প্রবেশকারী। তাদের জন্যে নেই অভিনন্দন, তারা তো জাহান্নামে জ্বলবে।
৬০ قَالُوا بَلْ أَنتُمْ لَا مَرْحَبًا بِكُمْ ۖ أَنتُمْ قَدَّمْتُمُوهُ لَنَا ۖ فَبِئْسَ الْقَرَارُ
অনুসারীরা বলবেঃ বরং তোমরাও, তোমাদের জন্যেও তো অভিনন্দন নেই। তোমরাই তো পূর্বে ওটা আমাদের জন্যে ব্যবস্থা করেছো। কত নিকৃষ্ট এই আবাসস্থল।
৬১ قَالُوا رَبَّنَا مَن قَدَّمَ لَنَا هَـٰذَا فَزِدْهُ عَذَابًا ضِعْفًا فِي النَّارِ
তারা বলবেঃ হে আমাদের প্রতিপালক! যে এটা আমাদের জন্যে পেশ করেছে জাহান্নামে তার শাস্তি আপনি দ্বিগুণ বর্ধিত করুন!
৬২ وَقَالُوا مَا لَنَا لَا نَرَىٰ رِجَالًا كُنَّا نَعُدُّهُم مِّنَ الْأَشْرَارِ
তারা আরো বলবেঃ আমাদের কি হল যে, আমরা যেসব লোককে মন্দ বলে গণ্য করতাম। তাদেরকে দেখতে পাচ্ছি না?
৬৩ أَتَّخَذْنَاهُمْ سِخْرِيًّا أَمْ زَاغَتْ عَنْهُمُ الْأَبْصَارُ
তবে কি আমারা তাদেরকে অহেতুক ঠাট্টা-বিদ্রুপের পাত্র মনে করতাম, না তাদের ব্যাপারে আমাদের দৃষ্টি বিভ্রম ঘটেছে?
৬৪ إِنَّ ذَٰلِكَ لَحَقٌّ تَخَاصُمُ أَهْلِ النَّارِ
এটা নিশ্চিত সত্য, জাহান্নামীদের এই বাদ-প্রতিবাদ।
৬৫ قُلْ إِنَّمَا أَنَا مُنذِرٌ ۖ وَمَا مِنْ إِلَـٰهٍ إِلَّا اللَّهُ الْوَاحِدُ الْقَهَّارُ
বলঃ আমি তো একজন সতর্ককারী মাত্র এবং আল্লাহ ছাড়া (সত্য) কোন মা’বূদ নেই, যিনি এক, পরাক্রমশালী।
৬৬ رَبُّ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ وَمَا بَيْنَهُمَا الْعَزِيزُ الْغَفَّارُ
যিনি আকাশমণ্ডলী, পৃথিবী এবং এগুলোর মধ্যস্থিত সবকিছুর প্রতিপালক, যিনি পরাক্রমশালী, মহাক্ষমাশীল।
৬৭ قُلْ هُوَ نَبَأٌ عَظِيمٌ
বলঃ এটা এক মহা সংবাদ,
৬৮ أَنتُمْ عَنْهُ مُعْرِضُونَ
যা হতে তোমরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছ।
৬৯ مَا كَانَ لِيَ مِنْ عِلْمٍ بِالْمَلَإِ الْأَعْلَىٰ إِذْ يَخْتَصِمُونَ
উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন ফেরেশতাদের সম্পর্কে আমার কোন জ্ঞান ছিল না যখন তারা বাদানুবাদ করছিলেন।
৭০ إِن يُوحَىٰ إِلَيَّ إِلَّا أَنَّمَا أَنَا نَذِيرٌ مُّبِينٌ
আমার নিকট তো এই ওহী এসেছে যে, আমি একজন স্পষ্ট সতর্ককারী।
৭১ إِذْ قَالَ رَبُّكَ لِلْمَلَائِكَةِ إِنِّي خَالِقٌ بَشَرًا مِّن طِينٍ
(স্মরণ কর,) যখন তোমার প্রতিপালক ফেরেশতাদেরকে বলেছিলেনঃ আমি মানুষ সৃষ্টি করেছি মাটি হতে,
৭২ فَإِذَا سَوَّيْتُهُ وَنَفَخْتُ فِيهِ مِن رُّوحِي فَقَعُوا لَهُ سَاجِدِينَ
যখন আমি ওকে সুষম করবো এবং ওতে আমার রূহ সঞ্চার করবো, তখন তোমরা ওর প্রতি সিজদাবনত হয়ো।
৭৩ فَسَجَدَ الْمَلَائِكَةُ كُلُّهُمْ أَجْمَعُونَ
তখন ফেরেশতারা সবাই সিজদাবনত হলেন-
৭৪ إِلَّا إِبْلِيسَ اسْتَكْبَرَ وَكَانَ مِنَ الْكَافِرِينَ
শুধু ইবলীস ব্যতিত, সে অহংকার করলো এবং কাফিরদের অন্তর্ভুক্ত হলো।
৭৫ قَالَ يَا إِبْلِيسُ مَا مَنَعَكَ أَن تَسْجُدَ لِمَا خَلَقْتُ بِيَدَيَّ ۖ أَسْتَكْبَرْتَ أَمْ كُنتَ مِنَ الْعَالِينَ
তিনি (আল্লাহ) বললেনঃ হে ইবলীস। আমি যাকে নিজ হাতে সৃষ্টি করেছি, তার প্রতি সিজদাবনত হতে তোমাকে কিসে বাধা দিলো? তুমি কি ঔদ্ধত্য প্রকাশ করলে, না তুমি উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন?
৭৬ قَالَ أَنَا خَيْرٌ مِّنْهُ ۖ خَلَقْتَنِي مِن نَّارٍ وَخَلَقْتَهُ مِن طِينٍ
সে বললঃ আমি তার চেয়ে শ্রেষ্ঠ। আপনি আমাকে আগুন হতে সৃষ্টি করেছেন এবং তাকে সৃষ্টি করেছেন মাটি হতে।
৭৭ قَالَ فَاخْرُجْ مِنْهَا فَإِنَّكَ رَجِيمٌ
তিনি বললেনঃ তুমি এখান হতে বের হয়ে যাও, নিশ্চয়ই তুমি বিতাড়িত।
৭৮ وَإِنَّ عَلَيْكَ لَعْنَتِي إِلَىٰ يَوْمِ الدِّينِ
এবং তোমার উপর আমার লানত স্থায়ী হবে প্রতিদান দিবস পর্যন্ত।
৭৯ قَالَ رَبِّ فَأَنظِرْنِي إِلَىٰ يَوْمِ يُبْعَثُونَ
সে বললঃ হে আমার প্রতিপালক! আপনি আমাকে অবকাশ দিন পুনরুত্থান দিবস পর্যন্ত।
৮০ قَالَ فَإِنَّكَ مِنَ الْمُنظَرِينَ
তিনি বললেনঃ তুমি অবকাশ প্রাপ্তদের অন্তর্ভুক্ত হলে-
৮১ إِلَىٰ يَوْمِ الْوَقْتِ الْمَعْلُومِ
অবধারিত সময় উপস্থিত হওয়ার দিন পর্যন্ত।
৮২ قَالَ فَبِعِزَّتِكَ لَأُغْوِيَنَّهُمْ أَجْمَعِينَ
সে বললঃ আপনার ইযযতের শপথ! আমি তাদের সবাইকে পথভ্রষ্ট করবো,
৮৩ إِلَّا عِبَادَكَ مِنْهُمُ الْمُخْلَصِينَ
তবে তাদের মধ্যে আপনার একনিষ্ঠ বান্দাদেরকে নয়।
৮৪ قَالَ فَالْحَقُّ وَالْحَقَّ أَقُولُ
তিনি বললেনঃ তবে এটাই সত্য, আর আমি সত্যই বলি-
৮৫ لَأَمْلَأَنَّ جَهَنَّمَ مِنكَ وَمِمَّن تَبِعَكَ مِنْهُمْ أَجْمَعِينَ
তোমার দ্বারা ও তোমার সমস্ত অনুসারীদের দ্বারা আমি জাহান্নাম পূর্ণ করবোই।
৮৬ قُلْ مَا أَسْأَلُكُمْ عَلَيْهِ مِنْ أَجْرٍ وَمَا أَنَا مِنَ الْمُتَكَلِّفِينَ
বলঃ আমি এর জন্য তোমাদের নিকট কোন প্রতিদান চাই না এবং আমি বানোয়াটদের অন্তর্ভুক্ত নই।
৮৭ إِنْ هُوَ إِلَّا ذِكْرٌ لِّلْعَالَمِينَ
এটা তো বিশ্বজগতের জন্য উপদেশ মাত্র।
৮৮ وَلَتَعْلَمُنَّ نَبَأَهُ بَعْدَ حِينٍ
এর সংবাদ তোমরা অবশ্যই জানবে, কিছু দিন পরে।
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x