৩৭. সূরাঃ সাফ-ফাত

আয়াত অবতীর্ণঃ মক্কা
আয়াত সংখ্যাঃ ১৮২
রুকূঃ ৫
৫১ قَالَ قَائِلٌ مِّنْهُمْ إِنِّي كَانَ لِي قَرِينٌ
তাদের মধ্যে কেউ বলবেঃ আমার ছিল এক সঙ্গী।
৫২ يَقُولُ أَإِنَّكَ لَمِنَ الْمُصَدِّقِينَ
সে বলতোঃ তুমি কি বিশ্বাসীদের অন্তর্ভুক্ত (যে,)?
৫৩ أَإِذَا مِتْنَا وَكُنَّا تُرَابًا وَعِظَامًا أَإِنَّا لَمَدِينُونَ
আমরা যখন মরে যাবো এবং আমরা মৃত্তিকা ও হাড্ডিতে পরিণত হবো তখনো কি আমদেরকে প্রতিফল দেয়া হবে?
৫৪ قَالَ هَلْ أَنتُم مُّطَّلِعُونَ
সে বলবেঃ তোমরা কি (তাকে উঁকি মেরে) দেখতে চাও?
৫৫ فَاطَّلَعَ فَرَآهُ فِي سَوَاءِ الْجَحِيمِ
অতঃপর সে ঝুঁকে দেখবে এবং তাকে দেখতে পাবে জাহান্নামের মধ্যস্থল;
৫৬ قَالَ تَاللَّهِ إِن كِدتَّ لَتُرْدِينِ
সে বলবেঃ আল্লাহর শপথ! তুমি তো আমাকে প্রায় ধ্বংসই করেছিলে।
৫৭ وَلَوْلَا نِعْمَةُ رَبِّي لَكُنتُ مِنَ الْمُحْضَرِينَ
আমার প্রতিপালকের অনুগ্রহ না থাকলে আমিও তো আটক ব্যক্তিদের মধ্যে শামিল হতাম।
৫৮ أَفَمَا نَحْنُ بِمَيِّتِينَ
আমাদের তো আর মৃত্যু হবে না?
৫৯ إِلَّا مَوْتَتَنَا الْأُولَىٰ وَمَا نَحْنُ بِمُعَذَّبِينَ
প্রথম মৃত্যুর পর এবং আমাদেরকে শাস্তিও দেয়া হবে না?
৬০ إِنَّ هَـٰذَا لَهُوَ الْفَوْزُ الْعَظِيمُ
এটা নিশ্চয়ই মহা সাফল্য।
৬১ لِمِثْلِ هَـٰذَا فَلْيَعْمَلِ الْعَامِلُونَ
এরূপ সাফল্যের জন্যে আমলকারীদের উচিৎ আমল করা।
৬২ أَذَٰلِكَ خَيْرٌ نُّزُلًا أَمْ شَجَرَةُ الزَّقُّومِ
আপ্যায়নের জন্যে কি এটাই শ্রেষ্ঠ, না যাক্কুম বৃক্ষ?
৬৩ إِنَّا جَعَلْنَاهَا فِتْنَةً لِّلظَّالِمِينَ
অবশ্যই যালিমদের জন্যে আমি এটা তৈরি করেছি পরীক্ষা সব্রূপ।
৬৪ إِنَّهَا شَجَرَةٌ تَخْرُجُ فِي أَصْلِ الْجَحِيمِ
এই বৃক্ষ বের হয় জাহান্নামের তলদেশ হতে।
৬৫ طَلْعُهَا كَأَنَّهُ رُءُوسُ الشَّيَاطِينِ
ওটার কলিগুলো যেন শয়তানের মাথা।
৬৬ فَإِنَّهُمْ لَآكِلُونَ مِنْهَا فَمَالِئُونَ مِنْهَا الْبُطُونَ
এটা হতে তারা নিশ্চয়ই আহার করবে এবং পেট পূর্ণ করবে তা’দ্বারা।
৬৭ ثُمَّ إِنَّ لَهُمْ عَلَيْهَا لَشَوْبًا مِّنْ حَمِيمٍ
তদুপরি তাদের জন্যে থাকবে ফুটন্ত পানির মিশ্রণ।
৬৮ ثُمَّ إِنَّ مَرْجِعَهُمْ لَإِلَى الْجَحِيمِ
অতঃপর তাদের প্রত্যাবর্তনস্থল হবে অবশ্যই জাহান্নামের দিকে।
৬৯ إِنَّهُمْ أَلْفَوْا آبَاءَهُمْ ضَالِّينَ
তারা তাদের পিতৃপুরুষদেরকে পেয়েছিল পথভ্রষ্ট।
৭০ فَهُمْ عَلَىٰ آثَارِهِمْ يُهْرَعُونَ
আর তারা তাদের পদাঙ্ক অনুসরণে ধাবিত হয়েছিল।
৭১ وَلَقَدْ ضَلَّ قَبْلَهُمْ أَكْثَرُ الْأَوَّلِينَ
তাদের পূর্বেও পূর্ববর্তীদের অধিকাংশ পথভ্রষ্ট হয়েছিল।
৭২ وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا فِيهِم مُّنذِرِينَ
এবং আমি তাদের মধ্যে সতর্ককারী প্রেরণ করেছিলাম।
৭৩ فَانظُرْ كَيْفَ كَانَ عَاقِبَةُ الْمُنذَرِينَ
সুতরাং লক্ষ্য কর, যাদেরকে সতর্ক করা হয়েছিল, তাদের পরিণাম কি হয়েছিল।
৭৪ إِلَّا عِبَادَ اللَّهِ الْمُخْلَصِينَ
তবে আল্লাহর একনিষ্ঠ বান্দাদের কথা ভিন্ন।
৭৫ وَلَقَدْ نَادَانَا نُوحٌ فَلَنِعْمَ الْمُجِيبُونَ
নূহ (আঃ) আমাকে আহ্বান করেছিলেন, আর আমি কত উত্তম সাড়া দানকারী।
৭৬ وَنَجَّيْنَاهُ وَأَهْلَهُ مِنَ الْكَرْبِ الْعَظِيمِ
তাকে ও তার পরিবারবর্গকে আমি উদ্ধার করেছিলাম মহা বিপদ হতে।
৭৭ وَجَعَلْنَا ذُرِّيَّتَهُ هُمُ الْبَاقِينَ
তার বংশধরদেরকেই আমি বিদ্যমান রেখেছি বংশ পরম্পরায়।
৭৮ وَتَرَكْنَا عَلَيْهِ فِي الْآخِرِينَ
আমি তার নাম পূর্ববর্তীদের স্মরণে রেখেছি।
৭৯ سَلَامٌ عَلَىٰ نُوحٍ فِي الْعَالَمِينَ
সমগ্র জগতের মধ্যে নূহ (আঃ)-এর প্রতি শাস্তি বর্ষিত হোক।
৮০ إِنَّا كَذَٰلِكَ نَجْزِي الْمُحْسِنِينَ
এভাবেই আমি সৎকর্মশীলদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকি।
৮১ إِنَّهُ مِنْ عِبَادِنَا الْمُؤْمِنِينَ
সে ছিল আমার মু’মিন বান্দাদের অন্যতম।
৮২ ثُمَّ أَغْرَقْنَا الْآخَرِينَ
অবশিষ্ট সকলকে আমি নিমজ্জিত করেছিলাম।
৮৩ وَإِنَّ مِن شِيعَتِهِ لَإِبْرَاهِيمَ
নিশ্চয়ই ইব্রাহীম (আঃ) তার (নূহ আঃ এর) অনুসারীভুক্ত ছিলেন।
৮৪ إِذْ جَاءَ رَبَّهُ بِقَلْبٍ سَلِيمٍ
স্মরণ কর, যখন সে তার প্রতিপালকের নিকট উপস্থিত হয়েছিল বিশুদ্ধ চিত্তে।
৮৫ إِذْ قَالَ لِأَبِيهِ وَقَوْمِهِ مَاذَا تَعْبُدُونَ
যখন সে তার পিতা ও তার সম্প্রদায়কে জিজ্ঞেস করেছিলঃ তোমরা কিসের পূজা করছো?
৮৬ أَئِفْكًا آلِهَةً دُونَ اللَّهِ تُرِيدُونَ
তোমরা কি আল্লাহর পরিবর্তে অলীক (বানিয়ে নেয়া) মা’বূদগুলোকে চাও?
৮৭ فَمَا ظَنُّكُم بِرَبِّ الْعَالَمِينَ
বিশ্বজগতের প্রতিপালক সম্বন্ধে তোমাদের ধারণা কি?
৮৮ فَنَظَرَ نَظْرَةً فِي النُّجُومِ
অতঃপর সে (ইব্রাহীম আঃ) তারকারাজির দিকে একবার তাকালো।
৮৯ فَقَالَ إِنِّي سَقِيمٌ
অতঃপর বললোঃ আমি অসুস্থ।
৯০ فَتَوَلَّوْا عَنْهُ مُدْبِرِينَ
সুতরাং তারা তাকে পশ্চাতে রেখে চলে গেল।
৯১ فَرَاغَ إِلَىٰ آلِهَتِهِمْ فَقَالَ أَلَا تَأْكُلُونَ
পরে সে (অতি সাবধানে) তাদের দেবতাগুলোর নিকট গেল এবং বললোঃ তোমরা কেন আহার করছো না?
৯২ مَا لَكُمْ لَا تَنطِقُونَ
তোমাদের কি হয়েছে যে, তোমরা কথা বল না?
৯৩ فَرَاغَ عَلَيْهِمْ ضَرْبًا بِالْيَمِينِ
অতঃপর সে তাদের উপর ডান হাত দ্বারা সবলে আঘাত করতঃ ঝাঁপিয়ে পড়ল।
৯৪ فَأَقْبَلُوا إِلَيْهِ يَزِفُّونَ
তখন ঐ লোকগুলো তার দিকে ছুটে আসলো।
৯৫ قَالَ أَتَعْبُدُونَ مَا تَنْحِتُونَ
সে বললোঃ তোমরা নিজেরা যাদেরকে খোদাই করে বানিয়েছ তোমরা কি তাদেরই পূজা কর?
৯৬ وَاللَّهُ خَلَقَكُمْ وَمَا تَعْمَلُونَ
প্রকৃতপক্ষে আল্লাহই সৃষ্টি করেছেন তোমাদেরকে এবং তোমরা যা কর (তাও)।
৯৭ قَالُوا ابْنُوا لَهُ بُنْيَانًا فَأَلْقُوهُ فِي الْجَحِيمِ
তারা বললোঃ এর জন্যে এক ইমারত তৈরি কর, অতঃপর একে জ্বলন্ত অগ্নিতে নিক্ষেপ কর।
৯৮ فَأَرَادُوا بِهِ كَيْدًا فَجَعَلْنَاهُمُ الْأَسْفَلِينَ
তারা তার (ইব্রাহীম আঃ এর) বিরুদ্ধে চক্রান্তের সংকল্প করেছিল; কিন্তু আমি তাদেরকে পরাজিত করেছিলাম।
৯৯ وَقَالَ إِنِّي ذَاهِبٌ إِلَىٰ رَبِّي سَيَهْدِينِ
এবং সে (ইব্রাহীম আঃ) বললোঃ আমি আমার প্রতিপালকের দিকে চললাম, তিনি অবশ্যই আমাকে সৎপথে পরিচালিত করবেন।
১০০ رَبِّ هَبْ لِي مِنَ الصَّالِحِينَ
হে আমার প্রতিপালক! আমাকে সৎ সন্তান দান করুন।
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x