ও কার বউ এল আজ মটর খেতে শাক তুলিতে,

সবুজ গাঙ্গে সোনার কমল কে এল রে ভাসিয়ে দিতে;

সিঁদুরফাটা মুখখানিরে হাঁটুর নীচে করিয়ে নত,

কচি ডগা ধরতে ধীরে সোহাগে যে হচ্ছে ক্ষত।

ফাগ-রাঙ্গা বউ মটর শুঁটি আবছা হাসে পাতার ফাঁকে,

শাক-ভাঙ্গা বউ নত হয়ে ঘোমটা তলে সিঁদুর আঁকে;

মটর-শুঁটির বাজে পাতা, বধূর হাতের বাজে চুড়ি,

বধূ দোলে সোহাগ ভরে বাতাস দোলায় মটর-কুঁড়ি।

চলতে পথে পথিক ভাবে, কার পানে আজ ফিরাই আঁখি,

দীঘির রাঙ্গা নালের বনে রক্ত মরাল ফিরছে নাকি।

পায়ের দুখান খাড় নিয়েই গেঁয়ো বালার মহা বিপদ,

যতই টানে জড়িয়ে ধরে মটর-শুঁটির পাতার আপদ।

ছল করে সে খায় গো আছাড় লুটিয়ে পড়ে মটর খেতে,

বুকে মুখে ফুলগুলি সব জড়ায় তারে হর্ষে মেতে।

0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x