বিভিন্ন ধরণের আকস্মিক পাপ

১. “কোন মানুষ একটি সতর্কবাণী শুনতে পারে, অথব৷ একজন নামানুষ এমন কিছু শুনে বা দেখে থাকতে পারে যা অন্য লোকদের বলা উচিৎ। যদি সেই লোকটি যা দেখেছে বা শুনেছে তা না বলে, তা হলে সে এই পাপের জন্যে দোষী হবে।

২. অথবা লোকটি হয়ত অশুচি কোন কিছু স্পর্শ করতে পারে। যেমন গৃহপালিত কোন প্রাণীর মৃতদেহ অথবা কোন অশুচি প্রাণীর মৃতদেহ। ওই লোকটি নাও জানতে পারে যে সে ঐসব জিনিস স্পর্শ করেছে; কিন্তু তবু সে ভুল করার কারণে দোষী হবে।

৩. এমন অনেক বিষয় আছে যা মানুষের কাছ থেকে আসে এবং মানুষকে অশুচি করে। একজন মানুষ না জেনেই অন্য একজনের কাছ থেকে এসবের যে কোন একটা স্পর্শ করতে পারে। যখন সেই মানুষ জানতে পারে যে সে অশুচি জিনিস স্পর্শ করেছে, তখন সে দোষী হবে।

৪. একজন মানুষ ভাল অথবা মন্দ কিছু চিন্ত৷ ন৷ করেই হঠকারী প্রতিজ্ঞা করে ফেলতে পারে এবং এসম্পর্কে ভুলে যেতে পারে কিন্তু যখন তার প্রতিজ্ঞার কথাটা মনে পড়ে, তখনই সে হবে দোষী কারণ সে তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি।

৫. সুতরাং যদি কোন মানুষ এগুলির মধ্যে কোন একটি বিষয়ে দোষী হয় তাহলে, সে যে কাজটা ভুল করে করেছে তা অবশ্যই স্বীকার করবে।

৬. সে অবশ্যই তার কৃত দোষের জন্য প্রভুর কাছে আসবে। সে অবশ্যই একট৷ স্ত্রী মেষশাবক ব৷ স্ত্রী ছাগল পাপমোচনের নৈবেদ্য হিসেবে আনবে। তারপর যাজক সেই মানুষটিকে কৃত পাপকর্ম থেকে মুক্ত করার জন্য যা কিছু করার করবে।

৭. “যদি লোকটি মেষশাবক দিতে সমর্থ না হয় তবে সে অবশ্যই দুটি ঘুঘু পাখী বা দুটি পায়র৷ ঈশ্বরের কাছে আনবে। এগুলো হল তার কৃত পাপের জন্য নৈবেদ্য । একটি পাখী হবে অবশ্যই তার পাপের নৈবেদ্য এবং অপরটি হবে হোমের নৈবেদ্য।

৮. লোকটি অবশ্যই সেগুলি যাজকের কাছে আনবে। প্রথমে যাজক পাপ নৈবেদ্য হিসেবে একটি পাখীকে উৎসর্গ করবে। যাজক পাখীর ঘাড় থেকে মাথাটা আলাদা করে নেবে, কিন্তু পাখীটিকে দুভাগে ভাগ করবে না।

৯. যাজক অবশ্যই বেদীর পাশে পাপের জন্য উৎসর্গীকৃত এই নৈবেদ্যর রক্তকে ছিটিয়ে দেবে। তারপর বাকি রক্ত বেদীর তলদেশে ঢেলে দেবে। এই হল কৃত পাপের জন্য নৈবেদ্য।

১০. এরপর যাজক দ্বিতীয় পাখীটিকে অবশ্যই হোমবলির নিয়মানুযায়ী উৎসর্গ করবে। এইভাবে যাজক সেই ব্যক্তিকে তার কৃত পাপ মোচনের প্রায়শিত্ত করবে এবং ঈশ্বর সেই ব্যক্তিকে ক্ষমা করবেন।

১১. “যদি মানুষটি দুটি ঘুঘু পাখী বা দুটি পায়র৷ দিতে সমর্থ না হয় তাহলে সে অবশ্যই ৮ কাপ গুঁড়ে৷ ময়দ৷ আনবে। এটাই হবে তার পাপের জন্য নৈবেদ্য। লোকটি কোনক্রমেই ময়দায় কোন তেল দেবে না। তা পাপ মোচনের নৈবেদ্য বলে সে এতে কুন্দুরু দেবে না।

১২. লোকটি অবশ্যই ময়দার গুঁড়ো যাজকের কাছে আনবে। যাজক তা থেকে এক মুঠে৷ ময়দ৷ নেবে। এ হবে এক স্মরণার্থক নৈবেদ্য। বেদীর ওপর যাজক গুঁড়ে৷ ময়দ৷ পোড়াবে। এ হল ঈশ্বরের প্রতি আগুনে পোড়ানো এক নৈবেদ্য।

১৩. এইভাবে যাজক মানুষটিকে শোধন করবে এবং ঈশ্বর সেই মানুষটিকে ক্ষমা করবেন। যেটুকু শস্য নৈবেদ্য পড়ে থাকবে, তা সাধারণ শস্য নৈবেদ্যর মতই যাজকের জন্য হবে।”

১৪. প্ৰভু মোশিকে বললেন,

১৫. “কোন ব্যক্তি আকস্মিকভাবে প্রভুর পবিত্র জিনিসের সাথে কোন দোষ করতে পারে। সেক্ষেত্রে সেই ব্যক্তি কোন খুঁত নেই এমন একটি পুরুষ মেষ অবশ্যই আনবে। এটাই হবে প্রভুর প্রতি দোষের জন্য দেওয়৷ নৈবেদ্য। তুমি অবশ্যই পবিত্র স্থানের মাপ কাঠি ব্যবহার করবে এবং পুরুষ মেষটির একটি মূল্য ঠিক করবে।

১৬. “পবিত্র জিনিসের সঙ্গে সে যে পাপ করেছে তার জন্য লোকটি অবশ্যই তার জরিমানা দেবে। সে যা দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা দেবে ও তার সঙ্গে মূল্যের এক পঞ্চমাংশ যোগ করবে এবং সেই মূল্য যাজককে দেবে। এইভাবে পাপমোচনের নৈবেদ্যর মেষটি উৎসর্গ করে যাজক সেই ব্যক্তির প্রায়শিত্ত করবে এবং ঈশ্বর ঐ ব্যক্তিকে ক্ষম৷ করবেন।

১৭. “যদি কোন ব্যক্তি পাপ করে থাকে এবং প্রভুর আজ্ঞাগুলির কোন একটি লঙ্ঘন করে থাকে, এমনকি যদি সে তা না জেনে করে থাকে, সে দোষী এবং তার পাপের জন্য দায়ী।

১৮. সেই ব্যক্তিকে যাজকের কাছে কোন খুঁত নেই এমন একটি পুরুষ মেষ আনতে হবে। সেই পুরুষ মেষ হবে দোষমোচনের নৈবেদ্য। এইভাবে অজান্তে সেটি যে পাপ করেছিল তা থেকে যাজক তাকে মুক্ত করবে এবং ঈশ্বর সেই ব্যক্তিকে ক্ষম৷ করবেন। 

১৯. এমন কি সে যে পাপ করছে এটা না জানলেও লোকটি দোষী সুতরাং সে প্রভুকে অবশ্যই তার দোষার্থক নৈবেদ্য দান করবে।”