চর্মরোগ সংক্রান্ত নিয়মাবলী

১. প্রভু মোশি ও হারোণকে বললেন,

২. কোন লোকের চামড়া যদি ফুলে থাকেবা তাতে খোস-পাঁচরা অথবা চকচকে দাগের মতো কিছু থাকে, যদি ক্ষত অংশটা কুষ্ঠ রোগের ঘায়ের মতো দেখতে হয়, তাকে অবশ্যই যাজক হারোন বা তার যাজক পুত্রদের কাছে আনতে হবে।

৩. চামড়ার ক্ষত স্থানটিকে যাজক অবশ্যই দেখবে। যদি ক্ষতের মধ্যেকার লোম সাদ৷ হয়ে ওঠে এবং যদি চামড়ার ওপর থেকে ক্ষতস্থানটিকে গর্তের মতে৷ মনে হয়, তবে ত৷ কুষ্ঠরোগ। যাজক লোকটিকে দেখা শেষ করে তাকে অশুচি বলে ঘোষণা৷ করবে।

৪. “কিন্তু চামড়ায় সাদ৷ দাগ যদি গভীর না হয় এবং ক্ষতস্থানের লোম যদি সাদ৷ না হয় তাহলে সাত দিনের জন্যে যাজক সেই মানুষটিকে অন্য সব লোকেদের থেকে আলাদা করবে।

৫. সাত দিনের দিন যাজক অবশ্যই লোকটাকে দেখবে। যাজক যদি দেখে বোঝে যে ক্ষতস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি এবং তা চামড়ার ওপর ছড়িয়ে পড়েনি, তাহলে আরও সাত দিনের জন্য লোকটাকে আলাদা করে রাখবে।

৬. সাত দিনের পর যাজক লোকটিকে আবার দেখবে। যদি ক্ষতস্থানটি শুকিয়ে যায় এবং চামড়ার ওপর না ছড়ায়, তখন যাজক সেই লোকটিকে শুচি বলে ঘোষণ৷ করবে। এক্ষেত্রে ক্ষতস্থানটি শুধু হল খোস-পাঁচড়ার, সুতরাং লোকটি অবশ্যই তার কাপড়-চোপড় পরিষ্কার করে শুচি হবে।

৭. “কিন্তু যদি লোকটি যাজকের কাছে নিজেকে শুচি দেখানোর পরে ক্ষতস্থানটি চামড়ায় আরও ছড়িয়ে পড়তে দেখে তা হলে লোকটি অবশ্যই যাজকের কাছে আবার আসবে।

৮. যাজক আবার দেখবে যে ক্ষতস্থানটি চামড়ার ওপর ছড়িয়ে গেছে কিনা, আর তাহলে যাজক তাকে অশুচি বলে ঘোষণা করবে। সেট। তাহলে কুষ্ঠরোগ।

৯. “যদি কোনো ব্যক্তির কুষ্ঠরোগ থাকে তাকে অবশ্যই যাজকের কাছে আনতে হবে।

১০. “যাজক অবশ্যই লোকটিকে দেখবে যে চামড়ার ওপর কোন সাদা ফোল৷ অংশ আছে কিনা এবং লোমটাও সাদ৷ হয়ে গেছে কিনা, যদি চামড়ার লোম সাদ৷ হয়ে যায় এবং চামড়ার ফোলা জায়গা কাঁচ৷ হয়ে ওঠে,

১১. “তাহলে তা কুষ্ঠরোগ। দীর্ঘ দিন ধরে যা লোকটির চামড়ায় থেকে গেছে, যাজক অবশ্যই তাকে অশুচি বলে ঘোষণ৷ করবে। তাকে অন্য লোকেদের থেকে অল্প সময়ের জন্য আলাদা করার প্রয়োজন নেই, কারণ লোকটি অশুচি।

১২. “কখনো কখনো মাথা থেকে পা পর্যন্ত সার৷ শরীরে চর্মরোগ ছড়াতে পারে। সুতরাং যাজক অবশ্যই লোকটির সারা শরীর দেখবে।

১৩. যদি যাজক দেখে যে চর্মরোগ সমস্ত শরীরে ছড়িয়ে গেছে এবং লোকটার চামড়া সাদ৷ হয়ে গিয়েছে, তাহলে যাজক অবশ্যই তাকে শুচি বলে ঘোষণা করবে।

১৪. কিন্তু যদি লোকটির চামড়৷ কাঁচ৷ হয় তাহলে সে শুচি নয়।

১৫. যখন যাজক কোনে৷ মানুষের চামড়৷ কাঁচা দেখে, সে অবশ্যই লোকটিকে অশুচি ঘোষণা করবে। কাঁচা চামড়া শুচি নয়। এটা হল কুষ্ঠরোগ।

১৬. “যদি কাঁচা চামড়৷ বদলায় এবং সাদা হয়ে যায়, তাহলে লোকটিকে যাজকের কাছে আসতে হবে।

১৭. যাজক লোকটিকে অবশ্যই দেখবে। যদি সংক্রামিত জায়গ৷ সাদ৷ হয়, তাহলে যাজক লোকটিকে অবশ্যই শুচি বলে ঘোষণা করবে। ঐ লোকটি শুচি।

১৮. “কোন ব্যক্তির চামড়ার ওপর ফোড়া হতে পারে এবং সে ফোঁড়৷ সেরে যেতে পারে।

১৯. পরে সেই ফোঁড়ার স্থানে সাদ৷ রঙের ফোলা বা দগদগে লাল ডোর৷ টান৷ সাদ৷ দাগ হতে পারে। লোকটি ঐ দাগ তখন যাজককে অবশ্যই দেখাবে।

২০. যাজক অবশ্যই তা দেখবে। যদি ফোড়াটা চামড়৷ থেকে গর্তের মতে৷ হয় এবং এর ওপরকার লোম সাদা হয়, তাহলে যাজক লোকটিকে অবশ্যই অশুচি ঘোষণা করবে। চিহ্নিত জায়গাটায় কুষ্ঠের ঘ। শুরু হয়েছে। চামড়ায় এই ফোড়াটার ভেতর থেকে কুষ্ঠরোগ ছড়িয়ে পড়েছে।

২১. কিন্তু যদি যাজক জায়গাটায় কোন সাদ৷ লোম না দেখে আর জায়গাটা চামড়ার মধ্যে গর্ত না করে থাকে বরং যদি দেখা যায় শুকিয়ে যাচ্ছে, তাহলে যাজক লোকটাকে সাত দিনের জন্যে আলাদা করে রাখবে।

২২. যদি চামড়ার আরও অংশে দাগ ছড়ায় তা হলে যাজক সেই লোকটিকে অবশ্যই অশুচি ঘোষণা করবে। এটা হল ঘা।

২৩. কিন্তু যদি চক্‌চকে দাগটি এক জায়গাতেই থাকে এবং না ছড়ায় তা হলে বুঝতে হবে তা পুরানে৷ ফোড়ারই ক্ষতচিহ্ন। যাজক অবশ্যই তাকে শুচি ঘোষণা করবে।

২৪-২৫. “কোন ব্যক্তির চামড়া আগুনে পুড়ে যেতে পারে। যদি চামড়ার কাঁচ৷ অংশটি সাদ৷ অথব৷ লাল ডোরাকাট। সাদ৷ অংশ হয়, যাজক অবশ্যই তা দেখবে। যদি সাদা অংশটা চামড়ায় গর্তের মতে৷ হয় এবং ওই জায়গাটার লোম সাদ৷ হয়ে যায় তাহলে ত৷ কুষ্ঠরোগ। পোড়া৷ অংশে কুষ্ঠ ছড়িয়ে পড়েছে। যাজক অবশ্যই ওই লোকটিকে অশুচি ঘোষণা করবে। এটা হল কুষ্ঠরোগ।

২৬. ”কিন্তু যদি সেই চক্‌চকে জায়গায় কোনে৷ সাদা লোম না থাকে এবং ক্ষতস্থানটা চামড়ায় গর্ত সৃষ্টি না করে মিলিয়ে যায়, তাহলে যাজক অবশ্যই সাত দিনের জন্য লোকটাকে আলাদা করবে।

২৭. সাতদিনের দিন যাজক লোকটাকে আবার দেখবে। যদি ক্ষতস্থানট৷ চামড়ার ওপর ছড়িয়ে যায়, তাহলে যাজক ঘোষণা করবে যে লোকট৷ অশুচি। এট৷ কুষ্ঠরোগ।

২৮. কিন্তু যদি চক্‌চকে দাগটি চামড়ায় না ছড়ায় এবং মিলিয়ে যায় তাহলে পোড়ার জন্যেই ফুলেছে বুঝতে হবে। এটা কেবলমাত্র পোড়ার ক্ষতচিহ্ন। যাজক অবশ্যই সেই ব্যক্তিকে শুচি বলে ঘোষণা করবে।

২৯. “কোন ব্যক্তির মাথার চামড়ায় বা দাড়িতে ঘা হলে,

৩০. যাজক চামড়ার এই সংক্রমণ অবশ্যই দেখবে। যদি চামড়৷ থেকে সংক্রমণের জায়গাট৷ গর্তের মতে৷ হয় এবং যদি তার চারপাশের লোম হয় পাতলা ও হলদে, তাহলে যাজক সেই ব্যক্তিকে অবশ্যই অশুচি ঘোষণা করবে। এটা দাদ, খারাপ চর্মরোগ। 

৩১. “যদি রোগটা চামড়ার থেকে গর্ত হওয়ার মতে৷ মনে না হয়, কিন্তু সেখানে কোনে৷ কালে৷ লোম না থাকে, তখন যাজক অবশ্যই লোকটিকে সাত দিনের জন্যে আলাদা করে দেবে।

৩২. সাতদিনের মাথায় যাজক সংক্রামিত জায়গাট৷ দেখবে। যদি রোগটা ন৷ ছড়ায় এবং সেখানে কোন হলদে লোম না জন্মায় এবং রোগটা চামড়া থেকে গর্তের মতো না হয়,

৩৩. তাহলে লোকটা নিশ্চয়ই নিজেকে কামিয়ে নেবে; কিন্তু সে রোগের জায়গাটা কখনও কামাবে না। যাজক অবশ্যই লোকটিকে আরও সাতদিন আলাদা করে রাখবে।

৩৪. সাত দিনের মাথায় যাজক অবশ্যই রোগটাকে দেখবে। যদি গোটা চামড়ায় রোগট। না ছড়ায় এবং যদি চামড়া থেকে সেটাকে গর্তের মত মনে না হয়, তাহলে যাজক লোকটিকে শুচি বলে ঘোষণা করবে। লোকটি অবশ্যই তার কাপড়-চোপড় ধৌত করবে এবং শুচি হবে।

৩৫. কিন্তু শুচি হবার পর লোকটির রোগ যদি চামড়ায় ছড়ায়,

৩৬. “তখন যাজক লোকটিকে আবার দেখবে। যদি রোগটা চামড়ায় ছড়িয়ে যায় যাজক হলুদ রঙের লোম দেখার প্রয়োজন বোধ করবে না। লোকট৷ অশুচি।

৩৭. ”কিন্তু যদি যাজক মনে করে যে রোগটা সেরে গেছে এবং তার মধ্যে কালো লোম গজাতে শুরু করেছে, তাহলে রোগটা সেরে গেছে। লোকট৷ শুচি। যাজক অবশ্যই ঘোষণা করবে যে লোকট৷ শুচি।

৩৮. “যদি কোন লোকের চামড়ায় সাদ৷ সাদ৷ দাগ থাকে,

৩৯. তাহলে যাজক অবশ্যই সব দাগের জায়গাগুলে৷ দেখবে। যদি লোকটার চামড়ার ওপরকার দাগগুলে৷ কেবলমাত্র অনুজ্জ্বল সাদাটে হয় তাহলে তা শুধুমাত্র ফুসকুড়ি যা ক্ষতিকারক নয়। ঐ ধরণের লোক শুচি।

৪০. “কোন মানুষের মাথার চুল পড়ে যেতে পারে; সে শুচি, এটা শুধু টাক পড়া।

৪১. কোন মানুষের মাথার দুপাশ থেকে চুল উঠে যেতে পারে; সে শুচি। এট৷ শুধুমাত্র আর এক ধরণের টাক পড়া।

৪২. কিন্তু যদি তার মাথার টাক পড়া চামড়ায় কোন লাল এবং সাদ৷ ছাপ থাকে, তাহলে তা চামড়ারই কোন রোগ বুঝতে হবে।

৪৩. একজন যাজক অবশ্যই তাকে দেখবে। যদি সংক্রামিত ফোড়৷ট৷ লাল এবং সাদ৷ হয়, আর যদি শরীরের অন্যসব অংশে কুষ্ঠ রোগের মতে৷ দেখায়।

৪৪. “তাহলে লোকটির মাথার খুলিতে কুষ্ঠ হয়েছে লোকট৷ অশুচি। যাজক অবশ্যই লোকটিকে অশুচি ঘোষণা করবে।

৪৫. “যদি এক ব্যক্তির কুষ্ঠ রোগ থাকে, তাহলে সেই ব্যক্তি অন্য লোকেদের সাবধান করে দেবে। সেই লোকটি চেঁচিয়ে বলবে, “অশুচি, অশুচি।” লোকটির কাপড়ের দুই ধারের জোড়া অবশ্যই ছিঁড়ে ফেলা হবে। সে তার চুল অবিন্যস্ত করবে এবং মুখ ঢাকবে। 

৪৬. “যতক্ষণ তার সংক্রামক ব্যাধি থাকবে ততক্ষণ লোকটি হবে অশুচি। সে অবশ্যই একা থাকবে। তার বাড়ি অবশ্যই শিবিরের বাইরে থাকবে।

৪৭-৪৮. “কিছু পোশাকের ওপর ছাত৷ পড়তে পারে। কাপড়ট৷ মসীন৷ সুতোয় অথব৷ উলে তৈরী, তাঁতে বোনা বা হাতে বোনা হতে পারে। এক টুকরো চামড়ার ওপর বা চামড়া থেকে তৈরী কোন জিনিসের ওপরেও ছাত৷ পড়তে পারে।

৪৯. যদি ঐ ছত্রাকের রঙ সবুজ বা লাল হয় তাহলে এটা অবশ্যই একজন যাজককে দেখাতে হবে।

৫০. যাজক অবশ্যই ছাতা পড়া অংশটা দেখবে এবং সেই জিনিসটাকে আলাদা জায়গায় সাতদিন ধরে ফেলে রাখবে।

৫১-৫২. সাত দিনের মাথায় যাজক অবশ্যই ছাতা পড়া অংশটি দেখবে। ছাতা পড়৷ অংশট৷ চামড়ার ব৷ কাপড়ের ওপর হোক তাতে তেমন কিছু যায় আসে না। যদি পোশাক তাঁতে বোন৷ বা হাতে বোন৷ হয় তাতেও কিছু যায় আসে না, চামড়৷ কিসে ব্যবহৃত হচ্ছে সেটাও কোন ব্যাপার নয়। যদি ছাতা পড়৷ অংশট৷ ছড়ায় তাহলে সেই কাপড় বা চামড়৷ অশুচি। সংক্রামণটি অশুচি। যাজক অবশ্যই সেই কাপড় ও চামড়৷ পুড়িয়ে ফেলবে।

৫৩. “যদি যাজক দেখে যে ছাত৷ পড়৷ অংশটি ছড়িয়ে পড়েনি, তখন কাপড় বা চামড়৷ অবশ্যই ধুতে হবে। চামড়া বা কাপড় যাই হোক না কেন কোন ব্যাপার নয়। অথব৷ যদি কাপড় হাতে বোনা বা তাঁতে বোনা হয় তাতেও কিছু আসে যায় না।

৫৪. যাজক লোকেদের অবশ্যই আদেশ দেবে সেই চামড়৷ বা কাপড়ের টুকরো ধুয়ে ফেলতে। তারপর যাজক আরে৷ সাতদিনের জন্য কাপড়-চোপড় আলাদা করে রাখবে।

৫৫. এরপর যাজক অবশ্যই আবার দেখবে। যদি সেই অংশটি তখনও ছত্রাক দ্বার৷ সংক্রমিত হয়ে আছে বলে মনে হয়, তখন ছড়িয়ে না থাকা সত্ত্বেও তা অশুচি হবে এবং তোমাকে তা আগুনে পোড়াতে হবে।

৫৬. “কিন্তু যদি ছাতা পড়া অংশটি ম্লান হয়ে গিয়ে থাকে তাহলে যাজক অবশ্যই চামড়৷ বা কাপড়ের টুকরো থেকে সংক্রামিত অংশটি ছিঁড়ে বাদ দেবে। তাঁতে বা হাতে বোনা কাপড় হলেও কিছু আসে যায় না।

৫৭. ”কিন্তু সেই চামড়ার বা কাপড়ের টুকরোয় ছাত৷ পড়৷ অংশ আবার দেখা দিতে পারে। যদি তাই ঘটে তখন ছাত৷ পড়৷ অংশট৷ ছড়িয়ে পড়ছে। সেক্ষেত্রে তোমাকে সেই ছাত৷ পড়া জিনিষ পুড়িয়ে ফেলতে হবে।

৫৮. “কিন্তু ধোয়ার পরে যদি ছাত৷ পড়া অংশ না দেখা দেয় তাহলে সেই চামড়ার বা কাপড়ের টুকরে৷ শুচি। সে কাপড় তাঁতে বা হাতে বোন৷ কিন৷ সেট। কোন ব্যাপারই নয়। সেই কাপড় শুচি।”

৫৯. ঐগুলি হল চামড়ার বা কাপড়ের টুকরোগুলির ওপরে ছাত৷ পড়ার ব্যাপারে নিয়মাবলী। কাপড় তাঁতে বা হাতে বোনা হতে পারে; কিন্তু তাতে কিছু আসে যায় না।