শিবিরের ব্যবস্থা

১. প্ৰভু মোশি এবং হারোণকে বললেন:

২. “ইস্রায়েলীয়রা সমাগম তাঁবুর চারপাশে কিছুটা দূরত্ব রেখে তাদের শিবির তৈরী করবে। প্রত্যেক ব্যক্তি তার গোষ্ঠীর নিজস্ব পতাকার কাছে শিবির স্থাপন করবে।”

৩. “পূর্বদিকে যেদিকে সূর্যোদয় হয়, সেদিকে থাকবে যিহূদার শিবিরের পতাকা। যিহুদার লোকের৷ এই পতাকার কাছেই শিবির স্থাপন করবে। অম্মীনাদবের পুত্র নহশোন হলেন যিহুদার লোকেদের নেতা।

৪. তার দলে পুরুষের সংখ্যা ৭৪,৬০০ জন।

৫. “যিহুদা পরিবারগোষ্ঠীর ঠিক পরেই ইষাখরের পরিবারগোষ্ঠী শিবির স্থাপন করবে। সূয়ারের পুত্র নথনেল ইষাখরের লোকেদের নেতা।

৬. “তার দলে পুরুষের সংখ্যা ৫৪,৪০০ জন।

৭. “যিহুদার পরিবারগোষ্ঠীর ঠিক পরেই সবূলূনের পরিবারগোষ্ঠীও শিবির স্থাপন করবে। হেলোনের পুত্র ইলীয়াব সবূলূনের লোকেদের নেতা।

৮. তার দলে পুরুষের সংখ্যা ৫৭,৪০০ জন।

৯. “যিহূদার শিবিরের মোট লোকসংখ্যা ১,৮৬,৪০০ জন। এদের বিভিন্ন পরিবারগোষ্ঠীতে বিভক্ত করা হয়েছে। স্থানান্তরে ভ্রমণ করার সময় যিহুদার গোষ্ঠী প্রথমে অগ্রসর হবে।

১০. “পবিত্র তাঁবুর দক্ষিণ দিকে রূবেণের শিবিরের পতাক৷ থাকবে। প্রত্যেক গোষ্ঠী তার পতাকার কাছে শিবির স্থাপন করবে। শদেয়ূরের পুত্র ইলীর হলেন রূবেণের লোকদের নেতা।

১১. “এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৪৬,৫০০ জন।

১২. “রূবেণের পরিবারগোষ্ঠীর ঠিক পরেই শিমিয়োনের পরিবারগোষ্ঠী শিবির স্থাপন করবে। সূরীশদ্দেয়ের পুত্র শলুমীয়েল হলেন শিমিয়োনের লোকেদের নেতা।

১৩. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৫৯,৩০০ জন।

১৪. “রূবেণের লোকেদের শিবিরের ঠিক পরেই গাদের পরিবারগোষ্ঠী শিবির স্থাপন করবে। দ্যুয়েলের পুত্র ইলীয়াসফ হলেন গাদের লোকেদের নেতা।

১৫. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৪৫,৬৫০ জন।

১৬. “রূবেণের শিবিরের এই গোষ্ঠীগুলির মোট পুরুষের সংখ্যা 1,51,450 জন। স্থানান্তরে ভ্রমণকালে রূবেণের শিবিরের লোকেরা দ্বিতীয় স্থানে থাকবে।

১৭. “ভ্রমণকালে লেবীয় লোকের৷ রূবেণের লোকেদের ঠিক পরেই থাকবে। অন্যান্য শিবিরের মাঝখানে সমাগম তাঁবু তাদের সঙ্গেই থাকবে৷ এমনকি ভ্রমণের সময়েও লোকের৷ তাদের শিবিরগুলি একই ক্রমানুসারে স্থাপন করবে। প্রত্যেক ব্যক্তি তার পারিবারিক পতাকার কাছে থাকবে।

১৮. “ইফ্রয়িম শিবিরের পতাক৷ পশ্চিম দিকে থাকবে। ই ফ্রয়িমের পরিবারগোষ্ঠী এই পতাকার কাছেই শিবির স্থাপন করবে। অম্মীহূদের পুত্র ইলীশাম৷ হলেন ইফ্রয়িমের লোকেদের নেতা।

১৯. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৪০,৫০০ জন।

২০. “ইফ্রয়িমের পরিবারের ঠিক পরেই মনঃশি পরিবারগোষ্ঠী শিবির স্থাপন করবে। পদাহসূরের পুত্র গমলীয়েল হলেন মনঃশি লোকেদের নেতা।

২১. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৩২,২০০ জন।

২২. “ইফ্রয়িমের পরিবারের ঠিক পরেই বিন্যামীনের পরিবারগোষ্ঠীও শিবির স্থাপন করবে। গিদিয়োনির পত্র অবীদান হলেন বিন্যামীনের লোকেদের দলপতি।

২৩. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৩৫,৪০০ জন।

২৪. “ইফ্রয়িমের শিবিরে সেনাদল হিসাবে যাদের গণনা করা হয়েছিল তাদের মোট পুরুষের সংখ্যা ১,০৮,১০০ জন। স্থানান্তরে ভ্রমণকালে এদের পরিবার তৃতীয় স্থানে থাকবে।

২৫. “দানের শিবিরের পতাক৷ তাঁবুর উত্তর দিকে থাকবে৷ দানের পরিবারগোষ্ঠী এই শিবিরেই থাকবে। অম্মীশদ্দয়ের পুত্র অহীয়েষর হলেন দানের লোকেদের নেতা।

২৬. এই গোষ্ঠীর পুরুষের সংখ্যা ৬২,৭০০ জন।

২৭. “আশের পরিবারগোষ্ঠীর লোকের৷ দানের পরিবারগোষ্ঠীর ঠিক পরেই শিবির স্থাপন করবে। অক্রণের পুত্র পগীয়েল হলেন আশেরের লোকেদের নেতা।

২৮. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৪১,৫০০ জন।

২৯. “নপ্তালির পরিবারগোষ্ঠী দানের পরিবারগোষ্ঠীর ঠিক পরেই শিবির স্থাপন করবে। ঐননের পুত্র অহীরঃ হলেন নপ্তালির লোকেদের নেতা।

৩০. এই দলে পুরুষের সংখ্যা ৫৩,৪০০ জন।

৩১. দানের শিবিরের মোট পুরুষের সংখ্যা ১,৫৭,৬০০ জন। স্থানান্তরে ভ্রমণকালে এরা সকলের শেষে থাকবে। প্রত্যেক ব্যক্তি তার পারিবারিক পতাকার সঙ্গে থাকবে।”

৩২. সুতরাং এরাই হলেন ইস্রায়েলের জনগণ। পরিবার অনুসারে তাদের গণনা করা হতো। শিবিরে গোষ্ঠী অনুসারে গণনাকৃত ইস্রায়েলের মোট পুরুষের সংখ্য৷ ৬,০৩,৫৫০ জন।

৩৩. মোশি প্রভুর কথা মান্য করলেন এবং ইস্রায়েলের অন্যান্য লোকেদের সঙ্গে লেবীয় লোকেদের গণনা করলেন না ৷

৩৪. প্রভু মোশিকে যা যা বলেছিলেন, ইস্রায়েলের লোকেরা তার প্রত্যেকটিই পালন করেছিলেন। প্রত্যেক গোষ্ঠী তার নিজস্ব পতাকার কাছেই শিবির স্থাপন করত এবং প্রত্যেক ব্যক্তি তার পরিবার ও পরিবারগোষ্ঠীর সঙ্গেই যাত্রা করত।