কয়েকজন নেতা মোশির বিরোধিতা করলেন

১. কোরহ, দাথন, অবীরাম এবং ওন মোশির বিরুদ্ধে গেল। (কোরহ ছিল যিষহরের পুত্র। যিহর ছিল কহাতের পুত্র এবং কহাৎ ছিল লেবির পুত্র। দাথন এবং অবীরাম ছিল দুই ভাই এবং ইলীয়াবের পুত্র। ওন ছিল পেলতের পুত্র। দাথন, অবীরাম এবং ওন ছিলেন রবেণের উত্তরপুরুষ।)

২. ঐ চারজন ব্যক্তি ইস্রায়েলের অন্যান্য ২৫০ জন পুরুষকে একত্রিত করে মোশির বিরুদ্ধে গেল। তারা ছিল লোকেদের নির্বাচিত নেতা। সমস্ত লোক তাদের চিনত।

৩. তারা মোশি এবং হারোণের বিরুদ্ধে কথ৷ বলার জন্যে একসাথে এল। তারা মোশি এবং হারোণকে বলল, “আপনি বড্ড বেশী বাড়াবাড়ি করছেন। ইস্রায়েলের সকল লোক পবিত্র এবং প্রভু এখনও তাদের মধ্যেই বাস করেন। প্রভুর অন্যান্য লোকেদের থেকে আপনি নিজেকে অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছেন।” 

৪. “মোশি এই কথা শুনে মাটিতে উপুড় হয়ে পড়লেন।

৫. আর তিনি কোরহ এবং তার অনুসরণকারীদের বললেন, “আগামীকাল সকালে প্রভু দেখিয়ে দেবেন কোন ব্যক্তি প্রকৃতই তাঁর এবং কে প্রকৃতই পবিত্র। আর সেই ব্যক্তিকে প্রভু তাঁর কাছে নিয়ে আসবেন। প্রভু যাকে বেছে নেবেন তাকে তাঁর কাছে নিয়ে আসবেন।

৬. ‘সুতরাং কোরহ তুমি এবং তোমার অনুসরণকারীরা এই কাজ করবে:

৭. আগামীকাল ধুনুচি নিয়ে তাতে সুগন্ধি ধুপধূনো রাখবে। তারপরে সেই ধুনুচিগুলে৷ প্রভুর সামনে নিয়ে আসবে। প্রভু সেই ব্যক্তিকে বেছে নেবেন যে সত্যই পবিত্র। তোমরা লেবীয়রা অনেক দূরে চলে গেছো— তোমর৷ ভুল করছো!’

৮. ‘মোশি কোরহকে এও বললেন, “লেবীয়রা দয়া করে আমার কথা শোনো।

৯. এটাই কি যথেষ্ট নয় যে ইস্রায়েলের ঈশ্বর তোমাদের ইস্রায়েলের মণ্ডলী থেকে আলাদা করে প্রভুর পবিত্র তাঁবুর সেবা করার জন্য এবং মণ্ডলীর সামনে দাঁড়িয়ে তাঁর সেবা করার জন্য তোমাদের তাঁর কাছে নিয়ে এসেছেন?

১০. যাজকদের কাজে সাহায্য করার জন্যে ঈশ্বর তোমাদের অর্থাৎ লেবীয় গোষ্ঠীভুক্ত লোকেদের নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু তোমরা এখন যাজক হওয়ার চেষ্টা করছো।

১১. “তুমি এবং তোমার অনুসরণকারীরা একত্রিত হয়ে প্রভুর বিরোধিতা করেছো। হারোণ কি কোনো ভুল কাজ করেছে যে তাঁর বিরুদ্ধে তোমরা অভিযোগ করছো?”

১২. এরপর মোশি ইলীয়াবের পুত্র দাথন এবং অবীরামকে ডাকলেন। কিন্তু ঐ দুই ব্যক্তি বললেন, “আমরা যাবো না।

১৩. এটাই কি যথেষ্ট নয় যে আপনি উত্তম জিনিসে পরিপূর্ণ শস্য শ্যামলা দেশ থেকে আমাদের নিয়ে এসেছেন। যাতে মরুভূমিতে হত্যা করতে পারেন? আর এখন আপনি আমাদের উপর কর্তৃত্বও করবেন?

১৪. আমরা কেন আপনাকে অনুসরণ করবো? উত্তম জিনিসে পরিপূর্ণ এমন কোনো দেশে তো আপনি আমাদের নিয়ে আসেন নি। আপনি আমাদের ঈশ্বরের শপথ করা সেই দেশও দেন নি এবং আমাদের চারণভূমি অথবা দ্রাক্ষাক্ষেতও দেন নি। আপনি কি এইসব লোকেদের ক্রীতদাস করবেন? না, আমরা আসবো না।”

১৫. এই কারণে মোশি খুবই ক্রুদ্ধ হলেন। তিনি প্রভুকে বললেন, “আমি এইসকল লোকেদের সঙ্গে কোনোদিন কোন অন্যায় করি নি। আমি কোনো সময়েই তাদের কাছ থেকে কোনো কিছুই নিইনি, একটি গাধা পর্যন্তও নয়। প্রভু আপনি এদের উপহার গ্রহণ করবেন না!”

১৬. “এরপর মোশি কোরহকে বলল, “আগামীকাল তুমি এবং তোমার অনুসরণকারীরা প্রভুর সামনে দাঁড়াবে। সেখানে হারোণ, তুমি ও তোমার লোকেরা থাকবে।

১৭. ”তোমরা প্রত্যেকে একটি করে ধুনুচি এনে তাতে সুগন্ধি ধুপধূনো রাখবে এবং তা ঈশ্বরকে প্রদান করবে। সেখানে নেতাদের জন্য ২৫০ টি ধুনুচি থাকবে এবং একটি পাত্র তোমার জন্য ও একটি পাত্র হারোণের জন্য থাকবে।”

১৮. সুতরাং প্রত্যেকে একটি ধুনুচি নিয়ে তার ওপর জ্বলন্ত কয়ল৷ ও সুগন্ধি ধুপধূনো রাখল। এরপর তারা মোশি ও হারোণের সাথে সমাগম তাঁবুর প্রবেশপথে গিয়ে দাঁড়ালো।

১৯. “কোরহও সমাগম তাঁবুর প্রবেশপথে তাদের বিরুদ্ধে সমস্ত লোককে জড়ো করেছিল। এর ঠিক পর সেই জায়গায় সকলের সামনে প্রভুর মহিমা প্রকাশিত হল।

২০. প্রভু মোশি ও হারোণকে বললেন,

২১. “এই সকল লোকেদের থেকে দূরে সরে যাও। আমি এখনই তাদের ধ্বংস করতে চাই!”

২২. কিন্তু মোশি এবং হারোণ মাটিতে নতজানু হয়ে অনুনয় করে বলল, “হে ঈশ্বর, তুমি জানো লোকেরা তাদের মনে কি ভাবছে।” একজন পাপ করলে কি তুমি সমস্ত মণ্ডলীর প্রতি ক্রুদ্ধ হবে?”

২৩. তখন প্রভু মোশিকে বললেন,

২৪. “কোরহ, দাথন এবং অবীরামের তাঁবু থেকে লোকেদের সরে যেতে বলো।”

২৫. ”মোশি উঠে দাঁড়ালেন এবং দাথন ও অবীরামের কাছে গেলেন। ইস্রায়েলের সকল প্রবীণেরা (নেতারা) তাঁকে অনুসরণ করল। 

২৬. মোশি লোকেদের সাবধান করে দিয়ে বললেন, “এই সকল মন্দ লোকেদের তাঁবু থেকে সরে যাও। তাদের কোনো জিনিস স্পর্শ কোরো না। যদি তোমরা সেটা করো, তাহলে তাদের পাপের জন্যে তোমরা ধ্বংস হবে।”

২৭. সেই কারণে কোরহ, দাথন এবং অবীরামের তাঁবু থেকে লোকেরা সরে গেল। আর দাথন এবং অবীরাম বের হয়ে তাদের স্ত্রীদের, সন্তানদের এবং ছোটে। শিশুদের নিয়ে তাঁবুর প্রবেশ পথে দাঁড়িয়ে রইল।

২৮. তখন মোশি বললেন, “আমি তোমাদের প্রমাণ করে দেখাবো যে প্রভুই আমাকে এই সব কাজ করার জন্য পাঠিয়েছেন এবং আমি এসব নিজের ইচ্ছানুসারে করিনি।

২৯. এই লোকেরা এখানে মারা যাবে। কিন্তু তার৷ যদি স্বাভাবিকভাবে মারা যায়, যে ভাবে লোকেরা সবসময় মারা যায় তাহলে তা প্রমাণ করবে যে, প্রভু আমাকে প্রকৃতই পাঠান নি।

৩০. কিন্তু যদি প্রভু এই লোকেদের মৃত্যু একটু ভিন্নভাবে ঘটান অর্থাৎ একটু নতুন ভাবে, তাহলে তোমরা জানবে যে এই লোকেরা সত্যই প্রভুকে অবজ্ঞা করেছিল। এটাই হল প্রমাণ: ধরণী বিদীর্ণ হয়ে যাবে এবং এই সমস্ত লোককে গ্রাস করবে। তারা জীবিতাবস্থায় তাদের কবরে নেমে যাবে। এবং এইসব লোকেদের অধিকৃত যাবতীয় জিনিসপত্র তাদের সঙ্গেই তলিয়ে যাবে।”

৩১. যখন মোশি এই কথাগুলো বলা শেষ করলেন, লোকদের পায়ের তলার মাটি ফেটে গেল।

৩২. মনে হল যেন পৃথিবী তার মুখটি খুলে তাদের গ্রাস করল। কোরহের সকল লোকেরা, তাদের পরিবার এবং তাদের অধিকৃত যাবতীয় দ্রব্যসামগ্রী পৃথিবীর নীচে চলে গেল।

৩৩. ঐসব লোকেরা জীবন্ত অবস্থাতেই তাদের কবরে গেল। তাদের অধিকৃত সকল দ্রব্যসামগ্রীই তাদের সঙ্গে মাটির তলায় চলে গেল। এরপর পৃথিবী তাদের ওপরে মুখ বন্ধ করল। তারা বিনষ্ট হল এবং সমাজ থেকে চিরকালের জন্যেই চলে গেল।

৩৪. ইস্রায়েলের লোকেরা এই মরণোন্মুখ মানুষগুলোর আর্তনাদ শুনতে পেল। সেই কারণে তারা বিভিন্ন দিকে ছুটে পালাতে পালাতে বলল, “পৃথিবী আমাদেরও গ্রাস করবে!

৩৫. এরপর প্রভুর কাছ থেকে এক আগুন এসে যারা সুগন্ধি ধুপধূনোর নৈবেদ্য প্রদান করছিল, সেই ২৫০ জন পুরুষকে ধ্বংস করল।

৩৬. “প্রভু মোশিকে বললেন,
৩৭-৩৮. “যাজক হারোণের পুত্র ইলীয়াসরকে বলো, যে আগুন এখনও শিখাহীন হয়ে জ্বলছে তার থেকে সমস্ত সুগন্ধি ধুপধূনোর পাত্রগুলে৷ নিয়ে এসো। এই সুগন্ধি ধুপধুনোর পাত্রগুলি এখন পবিত্র। পাত্রগুলো পবিত্র কারণ তারা এই পাত্রগুলো ঈশ্বরকে প্রদান করেছিল। তাদের ধুনুচিগুলে নিয়ে হাতুড়ির সাহায্যে সমতল পাতে পরিণত কর। এরপর এই ধাতব চাদরটি বেদীর আচ্ছাদনের কাজে ব্যবহার করো। ইস্রায়েলের লোকেদের জন্য এটি চিহ্ন, যাতে তারা সতর্ক হয়।”

৩৯ সুতরাং যাজক ইলীয়াসর পিতলের তৈরী সেই ধুনুচিগুলে৷ নিলেন। যে মারা গিয়েছিল, তারাই ঐ পাত্রগুলো এনেছিল। আর তারা ত৷ পিটিয়ে বেদীকে ঢাকবার জন্য পাত প্রস্তুত করলেন।

৪০. মোশির মাধ্যমে প্রভু যে ভাবে আজ্ঞা দিয়েছিলেন, তিনি ঠিক সেভাবেই তা করলেন। এটি এমন একটি চিহ্নস্বরূপ হল যা ইস্রায়েলের লোকেদের মনে রাখতে সাহায্য করবে যে কেবলমাত্র হারোণের পরিবারের কোনো ব্যক্তিই প্রভুর সামনে সুগন্ধি ধুপধুনো উৎসর্গ করতে পারে। এছাড়া অন্য কোনো ব্যক্তি যদি প্রভুকে সুগন্ধি ধুপধুনোর নৈবেদ্য প্রদান করেন তাহলে সেও কোরহ এবং তার অনুসরণকারীদের মতোই মারা যাবে।

হারোণ লোকেদের রক্ষা করলেন

৪১. পরদিন ইস্রায়েলের সমস্ত লোকেরা মোশি এবং হারোণের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলল, “আপনারা প্রভুর লোকেদের হত্যা করেছেন।”

৪২. আর ইস্রায়েলের লোকেরা মোশি ও হারোণের বিরুদ্ধে একত্র হয়ে যখন সমাগম তাঁবুর দিকে তাকাল, তখন দেখল মেঘ সেটিকে ঢেকে দিয়েছে এবং সেখানে ঈশ্বরের মহিমা প্রকাশিত হচ্ছে।

৪৩. তারপর মোশি এবং হারোণ সমাগম তাঁবুর সামনে গেলেন।

৪৪. প্রভু মোশিকে বললেন,

৪৫. “ঐ লোকেদের থেকে দূরে সরে যাও, যাতে আমি এখনই তাদের ধ্বংস করতে পারি।” সুতরাং মোশি এবং হারোণ মাটিতে উপুড় হয়ে পড়লেন।

৪৬. “তখন মোশি হারোণকে বললেন, “ধনুচি নিয়ে তাতে বেদী থেকে আগুন রাখো। এরপর এতে সুগন্ধি ধুপধূনো দাও এবং ঐ লোকেদের কাছে তাড়াতাড়ি গিয়ে তাদের পবিত্র করো। কারণ প্রভু তাদের প্রতি খুবই ক্রুদ্ধ হয়ে আছেন। ইতিমধ্যেই রোগ ছড়াতে শুরু করেছে ।”

৪৭-৪৮. সুতরাং হারোণ মোশির কথামতে৷ কাজ করলেন। হারোণ সুগন্ধি ধুপধূনো ও আগুন এনে লোকেদের মাঝখানে দৌড়ে গেলেন। কিন্তু লোকেদের মধ্যে এর মধ্যেই অসুস্থত৷ শুরু হয়ে গিয়েছিল। এই কারণে হারোণ মৃত লোক এবং যারা জীবিত আছে তাদের মাঝখানে গিয়ে দাঁড়ালেন। লোকেদের শুচি করার জন্যে যা দরকার হারোণ ঠিক তাই করলেন এবং তাদের অসুস্থতা আর বাড়ল না।

৪৯. কোরহের কারণে যাদের মৃত্যু হয়েছিল তাদের ছাড়াও আরও ১৪,৭০০ জন লোক অসুস্থতার জন্য মারা গেল।

৫০. সুতরাং ঐ ভয়ঙ্কর অসুস্থতা আর এগোলো না এবং পরে হারোণ পবিত্র তাঁবুর প্রবেশপথে মোশির কাছে ফিরে গেলেন।